বাঘায় ছাত্রীর নিজের বিয়ে বন্ধের জন্য থানায় অভিযোগ

0

বাঘা (রাজশাহী)প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের এক ছাত্রী নিজের বিয়ে বন্ধের জন্য থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) বাঘা থানায় নাবানক এক মেয়ের বিয়ে বন্ধের জন্য অভিযোগ করেছে মেয়েটি নিজেই বাদী হয়ে।

থানা অভিযোগ সূত্র, ঐ ছাত্রী বাঘা উপজেলার একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী বলে জানা যায়। তারা দুই বোন,ছোটটি অষ্টম শ্রেণীতে পড়ছে।ছাত্রীটির মা-বাবার মধ্যে গত ৬ মাস পূর্বে ছাড়াছাড়ি হয়েছে। বর্তমানে মা তার নানীর বাড়ীতে থাকছে।
বাবার কাছে থাকে তারা দুই বোন। পাকুড়িয়া ইউনিয়নের মোঃ আবুল কালাম এর বিরুদ্ধে এ অভিযোগ হয়েছে। বড় মেয়ে কে বিয়ের জন্য বাবা আবুল কালাম চাপ দেয়।এতে ঐ ছাত্রী বিয়েতে রাজি না হওয়াতে বাবা ক্ষিপ্ত হয়ে দুই মেয়েকে গালাগাল ও মারার হুমকি দিয়ে বাড়ী হতে বের করে দেয় বাবা আবুল কালাম। ছাত্রীটি উপায় না পেয়ে দুইবোন নানাীর বাড়ী গিয়ে নানীকে সাথে নিয়ে থানায় এসে বাবা আবুল কালম এর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন।

বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সাজ্জাদ হোসেন সাজু বলেন, দশম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক ছাত্রীর লিখিত অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে আমি পুলিশ পাঠিয়েছি।নাবালক মেয়েকে বিয়ে দেওয়া যাবে না। ছাত্রীটির বাবা কে রাস্ট্রীয় নিয়ম সঠিক ভাবে বুঝানো ও মানতে চেস্টা করা হবে।সেই সাথে ছাত্রীটিকে আইনি সর্বাধিক সহযোগিতা করবে বাঘা থানা পুলিশ।কোন নাবালকের বিয়ে মেনে নিব না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে