চারঘাটে দোকানের জন্য আটকে আছে রাস্তার কাজ

0

চারঘাট প্রতিনিধিঃ চারঘাট উপজেলার সরদহ ইউনিয়নে প্রায় ৭৫ লাখ টাকার রাস্তা পাকা করণ কাজে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে একটি টং দোকান। অথচ কাজ বাস্তবায়নের মেয়াদ শেষ হয়েছে ১০ মাস আগে।প্রশাসনের পক্ষ থেকে বার বার জায়গাটি ফাঁকা করতে বলা হলেও রহস্যজনক কারণে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়া হয়নি। উল্টো সরকারী জায়গাটি নিজের দাবী করে আদালতে মামলা দায়ের করেছে দখলদার শাহীন ইসলাম নামের ঐ ব্যক্তি। ফলে নির্ধারিত সময়ের পরেও রাস্তার কাজ বাস্তাবায়ন না হওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এলাকাবাসী।

উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বামুনদিঘী বাজার থেকে ফকিরের মোড় পর্যন্ত ১ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা পাঁকা করণ কাজের অনুমোদন হয় ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ৭৪ লক্ষ ৯৪ হাজার টাকা। রাস্তার কাজ শেষ করার মেয়াদ ছিল ৮ ই ডিসেম্বর ২০২০ সাল।এদিকে কাজের মেয়াদ ১০ মাস আগে শেষ হলেও রাস্তা পাকা না হওয়া স্থানীয়রা উপজেলা প্রশাসনের অভিযোগ জানিয়েছেন। অভিযোগের পেক্ষিতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিয়তি রানী কৈরী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সার্ভেয়ার দ্বারা রাস্তার জমি মেপে সীমানা চিন্হিত করে দেন। কিন্তু স্থানীয় দখলদার শাহীন আলী রাতের আধাঁরে ছোট টং দোকান স্থাপন করে রাস্তার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন এবং নিজের জমি দাবী করে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।এ বিষয়ে জানতে চাইলে টং দোকান মালিক শাহীন বলেন, এটা আমাদের কেনা জমি। কাগজপত্র রয়েছে জমির। আমার জমি দখল চেষ্টার কারনে আমি আদালতে মামলা দায়ের করেছি।

চারঘাট উপজেলা প্রকৌশলী নুরুল ইসলাম বলেন, আমরা রাস্তার কাজটি বাস্তবায়নে চরম বেকায়দায় পড়েছি। শাহীন আলী নামের এক ব্যক্তি ছোট একটি টং দোকান স্থাপন করে রাস্তার কাজ বাধাগ্রস্ত করছে। আমরা চেষ্টা করছি জায়গাটি ফাঁকা করে রাস্তার কাজটি শেষ করতে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চারঘাট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিয়তি রানী কৈরী বলেন, আমি জায়গাটা পরিদর্শন করে সীমানা নির্বারণ করে দিয়েছি। তারপরও দখলদার ব্যক্তি জায়গাটা ফাঁকা করেনি। উল্টো আদালতে মামলা দায়ের করেছে। তবে আইনের মাধ্যমে রাস্তার জায়গাটি ফাঁকা করার চেষ্টা করছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে